চোটের কারণে জোড়া ফ্রেন্ডলি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন সুনীল ছেত্রী

হিরো আইএসএল মরশুমে একাধিক চোট পেয়েছেন, তাই ভারতীয় দলের আসন্ন বাহরিন সফরে যেতে পারবেন না অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। হিরো আইএসএল শেষ হওয়ার পরের দিনই ভারতীয় দলের উড়ে যাওয়ার কথা বাহরিনে। সেখানে বাহরিন ও বেলারুশের বিরুদ্ধে দু’টি ফ্রেন্ডলি ম্যাচ খেলবে ভারতীয় দল।

সোমবারই এই দুঃসংবাদ দিয়ে ছেত্রী নিজেই সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের ওয়েবসাইটকে জানিয়ে দেন, “বাহরিন ও বেলারুশের বিরুদ্ধে দু’টি ফ্রেন্ডলি ম্যাচে খেলার খুব ইচ্ছা ছিল আমার। কিন্তু বলতে সঙ্কোচবোধ করছি  যে, আমি এই সফরে দলের সঙ্গে থাকতে পারব না। দীর্ঘ মরশুমে একাধিক চোট পেয়েছি আমি, যেগুলো সেরে উঠতে সময় লাগবে। তবে মে মাসের প্রস্তুতি শিবিরের আগে নিজেকে ফিট করে তোলার খুব চেষ্টা করব”।

চলতি মাসেই বাহরিনের মানামায় এই ম্যাচগুলি হওয়ার কথা। এ বছর জুনে ভারতীয় দল ২০২৩ এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন বা এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বের তৃতীয় রাউন্ডে খেলবে। তারই প্রস্তুতি হিসেবে এই দু’টি ফ্রেন্ডলি ম্যাচ খেলবে ভারত। এ জন্য ৩৮ জন ফুটবলারের সম্ভাব্য তালিকা প্রকাশ করেছেন জাতীয় কোচ ইগর স্টিমাচ। এই তালিকায় সুনীলও ছিলেন। কিন্তু অবশেষে তিনি জানিয়ে দিলেন, তিনি যেতে পারছেন না।

দলের অন্যদের নিয়ে ভারত অধিনায়ক এই বার্তায় বলেছেন, “এই দলের সম্ভাবনা যথেষ্ট এবং ভাল একটা মরশুমের পরে এই দলের বহু ফুটবলার আত্মবিশ্বাসে টগবগ করে ফুটছে। আশা করি এই সফরে খুব ভাল ফল হবে। দলের সবার প্রতি শুভেচ্ছা রইল”। ১০ মার্চ নির্বাচিত ফুটবলারদের পুনেয় জাতীয় দলের প্রস্তুতি শিবিরে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে যাঁরা হিরো আইএসএল সেমিফাইনালে খেলবেন, অর্থাৎ জামশেদপুর এফসি, এটিকে মোহনবাগান, হায়দরাবাদ এফসি ও কেরালা ব্লাস্টার্সের নির্বাচিত ফুটবলাররা, তাঁরা পরে এই শিবিরে যোগ দেবেন।

ভারতীয় দল বাহারিনে উড়ে যাবে ২১ মার্চ, হিরো আইএসএল ফাইনালের পরের দিনই। বাহরিনের বিরুদ্ধে ২৩ মার্চ ও বেলারুশের বিরুদ্ধে ২৬ মার্চ এই দু’টি ম্যাচ খেলবে ভারতীয় দল। দু’টি ম্যাচই শুরু হওয়ার কথা ভারতীয় সময়ে রাত সাড়ে ন’টায়। দশ বছর পরে কোনও উয়েফা সদস্য দেশের বিরুদ্ধে মাঠে নামার সুযোগ পাচ্ছে ভারত। ২০১২-র ফেব্রুয়ারিতে শেষবার ভারতীয় দল উয়েফা সদস্য দেশ আজারবাইজানের বিরুদ্ধে খেলেছিল। সেই ম্যাচে আজারবাইজান ৩-০-য় জিতেছিল।

এই সম্ভাব্য দলে আটজন নতুন মুখ রয়েছে। প্রভসুখন গিল, মহম্মদ নাওয়াজ, দীপক টাঙরি, রোশন সিং, বিক্রম প্রতাপ সিং, ভিপি সুহের, অনিকেত যাদব ও জেরি মাউইমিংথাঙ্গা। বাংলার চার ফুটবলার এই তালিকায় রয়েছেন। প্রীতম কোটাল, শুভাশিস বসু, প্রণয় হালদার ও রহিম আলি। এটিকে মোহনবাগানের আট সদস্য অমরিন্দর সিং, প্রীতম, শুভাশিস, সন্দেশ ঝিঙ্গন, আশুতোষ মেহতা, দীপক টাঙরি, মনবীর সিং ও লিস্টন কোলাসো এই সম্ভাব্য তালিকায় রয়েছেন।

Your Comments

Your Comments