শুধু লিগশিল্ড নয়, চ্যাম্পিয়নের ট্রফিও চান লোবেরা, নিজেদের ভুল স্বীকার প্রীতমের

লিগের এক নম্বর হয়েই সন্তুষ্ট নন মুম্বই সিটি এফসি-র কোচ সের্খিও লোবেরা। এ বার পরবর্তী লক্ষ্যেও সফল হতে চান তিনি। রবিবার বাম্বোলিমের জিএমসি স্টেডিয়ামে লিগপর্বের শেষ ম্যাচে এটিকে মোহনবাগানকে ২-০ গোলে হারানোর পরে ভার্চুয়াল প্রেস মিটে এসে লোবেরা বলেন, “মরশুম এখনও শেষ হয়ে যায়নি। এখনও আমাদের লক্ষ্যপূরণ হওয়া বাকি আছে। তবে তার আগে প্লে-অফে ওঠার সাফল্যটা উপভোগ করতে হবে আমাদের। আমাদের ট্রফিটা জিততে হবে এ বার। এই মুহূর্তে প্রত্যেক প্রতিপক্ষই কঠিন। এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে আমাদের সেমিফাইনাল ম্যাচগুলো খুবই ভাল হবে। ওরা খুবই ভাল দল। আশা করি সেমিফাইনালে আমরাই জিতব”।

এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের টিকিট পাওয়ার জন্য এ দিন এটিকে মোহনবাগানের ড্র করলেই চলত। তবে সেই সম্মান অর্জন করার জন্য মুম্বই সিটি এফসি-র সামনে জয় ছাড়া কোনও রাস্তা ছিল না। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেও অবশ্য মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ড্র বা জয় পাননি রয় কৃষ্ণা, ডেভিড উইলিয়ামসরা। সাত মিনিটের মাথায় সেনেগালিজ ডিফেন্ডার মুর্তাদা ফল গোল করে এগিয়ে দেন দলকে। ৩৯ মিনিটের মাথায় সেই ব্যবধান বাড়ান নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড বার্থোলোমিউ ওগবেচে। ভুল শুধরে দ্বিতীয়ার্ধে গোল শোধ করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠলেও মুম্বইয়ের দুর্ভেদ্য রক্ষণ ভেদ করে গোলশোধ করতে পারেনি এটিকে মোহনবাগান।  

এটিকে মোহনবাগানের অধিনায়ক প্রীতম কোটাল নিজেদের ভুল স্বীকার করে নিয়ে হিরো আইএসএল ডিজিটালকে বলেন, “যে ভাবে আমরা দুটো গোল ওদের দিয়েছি, নিজেদেরই দোষ দেব। কিছু করার নেই, আমরা চেষ্টা করেছি, একশো শতাংশ দিয়েছি। ম্যাচটা জিততে পারিনি ঠিকই। কিন্তু আমাদের সামনে এখন সেমিফাইনাল রয়েছে। পরবর্তী লক্ষ্য সেমিফাইনালে জেতা। খারাপ লাগছে যে এত কাছে এসেও একটা ভাল সুযোগ হাতছাড়া করলাম। তবে এখান থেকেই আমাদের শিক্ষা নিয়ে পরের ধাপে যেতে হবে। নিজেদের শোধরাতে হবে। যাতে পরের বার যখন এই সুযোগ আসবে, তখন যেন সেটাও হাতছাড়া না হয়”।

মুম্বইয়ের কোচ চান এই সময়টা দলের ছেলেরা আগে উপভোগ করে নিক, তার পরে পরবর্তী চ্যালেঞ্জের জন্য তৈরি হওয়া যাবে। তিনি বলেন, “এখন এই সাফল্য উপভোগ করার সময়। আমরা কী ভাবে লিগের সেরা হলাম, সেটা বিশ্লেষণ করার সময়। সমর্থক, কর্মকর্তাদের মুখে যে আমরা হাসি ফোটাতে পেরেছি, এটাই সবচেয়ে বড় কথা। ওঁরা আমাদের সব কিছু দিয়েছেন। গত এক মাসে অনেক কিছু ঘটেছে। সব কিছুর শেষে উপভোগ করার মতো একটা মুহূর্তে আসতে পেরেছি আমরা। দলের ছেলেরা এই লিগ শিল্ড জেতার জন্য নিজেদের উজাড় করে দিয়েছে। এটা ওদের প্রাপ্য ছিল। আশা করি, এ বার আমরা চ্যাম্পিয়নের ট্রফিটাও জিতব”।

শুরুটা ভাল করেও লিগের শেষ দিকে একটু বেসামাল হয়ে পড়েছিল মুস্বই সিটি এফসি। ছ’টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র দু’টিতে জেতে তারা। ফলে শীর্ষে পৌঁছনোর লড়াইয়ে এটিকে মোহনবাগান তাদের পিছনে ফেলে দেয়। তা সত্ত্বেও দলের ফুটবলারদের প্রতি আস্থা রেখেছিলেন বলে জানালেন লা পালমার প্রাক্তন কোচ। বলেন, “দলের ছেলেদের ওপর আমি কখনও আস্থা হারাইনি। কারণ, ওদের সঙ্গে আমি সবসময়ই কাজ করি। ওরা প্রত্যেকে একেকজন যোদ্ধা। প্রত্যেকেই যথেষ্ট উচ্চকাঙ্খী ও ভাল মানুষ। মাঠে ও মাঠের বাইরে আমরা একটা পরিবার। মানসিক ভাবেও আমরা খুবই শক্তিশালী। জামশেদপুরের কাছে হারার পরে আমাদের খারাপ সময় এসেছিল ঠিকই। কিন্তু ফের নিজেদের শক্তির প্রমাণ দিতে পেরেছি এবং শীর্ষস্থানটা আমাদেরই প্রাপ্য ছিল”। 

তিনি খুশি মুম্বই সিটি এফসি-র মালিকপক্ষ বিখ্যাত সিটি ফুটবল গ্রুপের জন্যও। বলেন, “আমি যখন এই ক্লাবের দায়িত্ব নিয়ে আসি, তখন সিটি ফুটবল গ্রুপ একটা বড় প্রকল্পের কাজ শুরু করে দিয়েছিল। এটা আমাদের কাছে একটা বড় চ্যালেঞ্জ। শেষ পর্যন্ত আমরা যে এক নম্বরে থেকে লিগ শেষ করেছি, এটা আমাদের ক্লাবের কাছে, সিটি ফুটবল গ্রুপের কাছে একটা বিরাট প্রাপ্তি। সিটি ফুটবল গ্রুপের সঙ্গে কোচ হিসেবে কাজ করাটা সেরা অভিজ্ঞতা। অনেক জ্ঞানী মানুষ এই সাফল্যের পিছনে রয়েছেন। এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার সুযোগ পাওয়াটাও বিশাল ব্যাপার”।

লিগের সেরা হতে না পারলেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী এটিকে মোহনবাগানের ডিফেন্ডার প্রীতম কোটাল। তবে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য ক্লাবের সমস্ত সমর্থকদের সমর্থন চান তিনি। তাঁদের উদ্দেশ্যে প্রীতম বলেন, “সমর্থকদের সবাইকে বলব, এই সময়ে আপনাদের সবাইকে আমরা পাশে চাই। যে যেখানেই থাকুন দলের পাশে থাকুন। এখন আমাদের একটাই লক্ষ্য, ট্রফিজয়। আমরা আত্মবিশ্বাসী, আমরা সেটা পারব। যে ভুলগুলো করেছি, সেগুলো শুধরে নিয়ে পরের ম্যাচ থেকে আমরা উন্নতি করব। আপনারা পাশে থাকুন, আমরা ঘুরে দাঁড়াবই”। 

সবুজ-মেরুন বাহিনীর সামনে এখন সেমিফাইনালে জিতে ফাইনালে ওঠার লক্ষ্য, যেখানে তাদের খেলতে হবে নর্থইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে। অন্য সেমিফাইনালে মুম্বইয়ের সামনে এফসি গোয়া, যারা এ দিন ফতোরদা স্টেডিয়ামে হায়দরাবাদ এফসি-র বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র করে লিগ টেবলের চার নম্বর জায়গাটা সুরক্ষিত করে। সেমিফাইনালে প্রথম লেগে ৫ মার্চ মুখোমুখি হবে মুম্বই ও গোয়া এবং পরের দিন এটিকে মোহনাবাগান নামবে নর্থইস্টের বিরুদ্ধে। দ্বিতীয় লেগ ৮ ও ৯ মার্চ।

Your Comments

Your Comments