এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত হার মানতে হল ভারতকে। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডের শেষ ম্যাচে কাতারের কাছে ১-২-এ হেরে তৃতীয় রাউন্ডে ওঠার দৌড় থেকে ছিটকে গেল ইগর স্টিমাচের ভারত। 

মঙ্গলবার রাতে আর রায়ানের জসিম বিন হামাদ স্টেডিয়ামে এশীয় চ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে এই ম্যাচের প্রথমার্ধে লালিয়ানজুয়ালা ছাঙতের গোলে এগিয়ে যায় ভারত। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ইউসুফ আইমেন ও আল রাওয়ির দেওয়া গোলে শেষ পর্যন্ত জয় ছিনিয়ে নেয় কাতার, যারা গ্রুপশীর্ষে থেকে তৃতীয় রাউন্ডে উঠল। এ দিনের অপর ম্যাচে কুয়েত ১-০-য় আফগানিস্তানকে হারিয়ে গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা দল হিসেবে তৃতীয় রাউন্ডে উঠল। 

এ দিন ভারতকে শুরু থেকেই চাপে রাখে কাতার এবং ১২ মিনিটের মাথায় গোলের সুবর্ণ সুযোগ তৈরি করে ফেলেন আহমেদ আল রাওয়াই। কিন্তু তাঁর শট গোলে ঢোকার আগেই দুর্দান্ত দক্ষতায় আটকে দেন ভারতীয় ডিফেন্ডার মেহতাব সিং। 

শুরুর এই চাপ সামলে পাল্টা আক্রমণে ওঠা শুরু করে ভারত এবং রহিম আলি গোলের সুযোগ পেয়ে যান। তাঁর মার্কারকে পরাস্ত করে তিনি গোলের উদ্দেশ্যে মাটি ঘেঁষা শট নিলেও তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর পরে মনবীর সিংও ওয়ান টু ওয়ান পরিস্থিতিতে গোলের সুযোগ পান। কিন্তু তাঁর সামনে থাকা শেহাব এলেথিকে পরাস্ত করতে পারেননি তিনি। 

ম্যাচের প্রথম গোলটি লালিয়ানজুয়ালা ছাঙতের পা থেকে আসে ৩৭ মিনিটের মাথায়, যখন বক্সের মাথা থেকে তাঁকে গোলের পাস বাড়ান ব্র্যান্ডন ফার্নান্ডেজ এবং প্রতিপক্ষের জালে বল জড়াতে বিন্দুমাত্র ভুল করেননি ছাঙতে (১-০)। উত্তেজনাপূর্ণ প্রথমার্ধের শেষে এই এক গোলেই এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ভারত। 

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই গোল শোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে কাতার। ৫৪ মিনিটের মাথায় আনোয়ার আলিকে পরাস্ত করে ভারতের বক্সে ঢুকে পড়েন খালিদ আলি এবং বক্সের মধ্যে আল হাসানকে স্কোয়ার পাস করেন। তাঁর শট ফের অসাধারণ ভাবে আটকান মেহতাব। 

এক গোলে এগিয়ে থেকেই যাতে তারা ম্যাচ শেষ করতে পারে, সে জন্য ভারত ক্রমশ রক্ষণাত্মক হতে শুরু করে ও ডিফেন্সে লোক বাড়িয়ে প্রতিপক্ষকে আটকে রাখার চেষ্টা শুরু করে। কিন্তু ৭৩ মিনিট পর্যন্ত তাদের আটকে রাখার পর ইউসুফ আইমেন সমতা এনে ফেলেন (১-১)। 

সমতা আনার পরই ছন্দে ফিরে আসে কাতার এবং ভারতকে আরও কোণঠাসা করার চেষ্টা শুরু করে দেয়। ভারতীয় রক্ষণও চাপের মুখে ক্রমশ গতি ও প্রতিরোধ ক্ষমতা হারাতে শুরু করে। ৮৫ মিনিটের মাথায় বক্সের মাথা থেকে নেওয়া শটে জালে বল জড়িয়ে দেন আল রাওয়াই (১-২)। এই গোলের পরে সাত সাত মিনিটের স্টপেজ টাইম পাওয়া সত্ত্বেও আর সমতা ফেরাতে পারেনি ভারত। ফলে বাছাই পর্বের তৃতীয় রাউন্ডে ওঠার সুবর্ণ সুযোগ হারাল তারা।