ফর্মে ফিরতে নিজ উদ্যোগে স্পেনে গিয়ে প্রস্তুতি নেবেন গোলকিপার অরিন্দম ভট্টাচার্য

গত মরশুমটা তাঁর তেমন ভাল না কাটায় এ বার আর ঝুঁকি নিতে চান না গোলকিপার অরিন্দম ভট্টাচার্য। স্পেনে যাচ্ছেন প্রস্তুতি নিতে। সেখানে তিনি মাস খানেক মারবেয়া এফসি ক্লাবের প্রথম দলের সঙ্গে অনুশীলন করে তার পরে দেশে ফিরবেন। সবচেয়ে বড় কথা এই এক মাস স্পেনে অনুশীলন করতে যাওয়ার জন্য তিনি কোনও ক্লাব বা স্পনসরের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতা পাচ্ছেন না। পুরোপুরি ব্যাক্তিগত উদ্যোগে স্পেনে যাচ্ছেন নিজেকে ফর্মে ফিরিয়ে আনার উদ্দেশ্যে।

২০২০-২১ মরশুমে গোল্ডেন গ্লাভজয়ী গোলকিপারের গত মরশুম একদমই ভাল যায়নি। ১১টি ম্যাচে তিনি ২৯টি সেভ করলেও ১৯টি গোল খেয়েছেন। সে বার প্রথম কলকাতা ডার্বিতে পায়ে চোট লাগায় চারটি ম্যাচে মাঠের বাইরে ছিলেন তিনি। সেই সময়ে শুভম সেন, শঙ্কর রায়রা গোল সামলান। চোট সারিয়ে ফিরে আসার পরে তিনি ক্রমশ চেনা ছন্দে ফিরতে শুরু করলেও তা বজায় রাখতে পারেননি। হতাশ হয়ে দলের নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্তও নেন তিনি।

এ বার মরশুম শুরুর আগে নিজেকে ফর্মে ফেরানোর সংকল্প নিয়েছেন। তাই তিনি স্পেনে গিয়ে প্রস্তুতির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানায় বাংলা দৈনিক ‘আজকাল’। এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরে আইএসএল ডিজিটালের পক্ষ থেকে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে অরিন্দম বলেন, “স্পেনের মারবেয়ায় যাচ্ছি ট্রেনিং নিতে ওখানকার ক্লাব মারবেয়া এফসি-তে। ওদের গোলকিপার কোচ যিনি আছেন, তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে আমার। উনি জানতে চেয়েছিলেন, কী ধরনের ট্রেনিং করি আমি। আমার ট্রেনিংয়ের কিছু ভিডিও ক্লিপিংস এবং যে সমস্ত বিদেশি কোচেদের সঙ্গে ট্রেনিং করেছি, তার কিছু ভিডিও ক্লিপিংসও পাঠিয়েছি। সেগুলো দেখার পরে উনি আমাকে জানিয়েছেন, ওদের দলের সঙ্গেই আমি ট্রেনিং করতে পারব। ভিসার জন্য আবেদন করেছি। ভিসা এসে গেলেই চলে যাব”।

একজন ভারতীয় ফুটবলার সম্পুর্ণ নিজ উদ্যোগে, কারও আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়াই নিজের ফর্ম ফিরে পেতে ইউরোপে যাচ্ছেন প্রস্তুতি সারতে, ভারতীয় ফুটবলে এমন নজির বিরল। কেন এমন সিদ্ধান্ত নিলেন অরিন্দম, তা জানতে চাইলে তিনি আইএসএল ডিজিটালকে বলেন, “গত মরশুমটা খুব একটা ভাল যায়নি আমার। এ বার প্রস্তুতিটা খুব ভাল ভাবে নিতে হবে। কলকাতায় আমি আগে নিয়মিত অভিজিৎদার (মন্ডল) কাছে ট্রেনিং করি। যেহেতু এখন অভিজ্ৎদা অনূর্ধ্ব ১৬, অনূর্ধ্ব ১৪ ভারতীয় দলের সঙ্গে রয়েছেন, তাই উনি ওদিকেই একটু বেশি ব্যস্ত থাকছেন। কিন্তু আমাকে তো পরের মরশুমের জন্য প্রস্তুত হতেই হবে। তাই ভাবলাম স্পেনেই যাই। যেহেতু আমি এখানে স্প্যানিশ কোচেদের অধীনে অনেক কাজ করেছি, তাই জানি ওঁরা কী রকম ট্রেনিং করান। তাই ওখানেই আমি ঠিকমতো প্রস্তুতিটা সারতে পারব বলেই মনে হয়”।

যে ক্লাবে গিয়ে প্রস্তুতি সারবেন অরিন্দম, সেই মারবেয়া এফসি স্প্যানিশ লিগের পঞ্চম ডিভিশনের ক্লাব। ২০০১-০২ ও ২০১৩-১৪-য় এই ডিভিশনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। ২০২০-তে যখন তারা দ্বিতীয় ড্ভিশনে খেলত, তখন হিরো আইএসএল চ্যাম্পিয়ন হায়দরাবাদ এফসি-র সঙ্গে কৌশলগত সাহায্যের চুক্তি করে, যার মেয়াদ আগামী বছর শেষ হবে। মারবেয়া এফসি-র এখনকার দলে দু’জন গোলকিপার রয়েছেন আলেহান্দ্রো স্যান্তোম, আলবার্তো লেজারাখা ও হোসে সেরানো। তাঁদের সঙ্গেই মাস খানেক অনুশীলন করবেন অরিন্দম। 

টানা দুই মরশুমে অসাধারণ পারফরম্যান্সের পরে ফুটবলমহলে অরিন্দমের সবুজ-মেরুন শিবিরে থাকা নিয়ে যখন কোনও সন্দেহ ছিল না, তখন তিনি এসসি ইস্টবেঙ্গলে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় অনেকেই অবাক হয়েছিলেন। ২০২০-২১ হিরো আইএসএল ফাইনালে মুম্বই সিটি এফসি-র কাছে এটিকে মোহনবাগান হারলেও তাদের গোলকিপার মুম্বইয়ের অমরিন্দর সিংকে পিছনে ফেলে গোল্ডেন গ্লাভের দৌড়ে এক নম্বরে ছিলেন অরিন্দম।

সে বছর অমরিন্দর এটিকে মোহনবাগানে যোগ দেওয়ার পরে ছবিটা পাল্টাতে শুরু করে। অরিন্দম সবুজ-মেরুন শিবির ছেড়ে তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দী শিবিরে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং সম্ভবত এত বড় সিদ্ধান্তের পুরস্কার হিসেবে তাঁকে দলের অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সেই দায়িত্ব শেষ পর্যন্ত ছেড়ে দেন তিনি। এ বার নতুন করে ফুটবল জীবন শুরুর পথে এগোচ্ছেন ফুটবলের এই বঙ্গ তারকা।

Your Comments

Your Comments