গত মরশুমে ডুরান্ড কাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা ডেভিড লালনসাঙ্গার সঙ্গে তিন বছরের চুক্তি করল ইস্টবেঙ্গল এফসি। মঙ্গলবার সরকারিভাবে এই ঘোষণা করে তারা।

গত মরশুমে ডুরান্ড কাপে সবচেয়ে বেশি গোল করা ছাড়াও কলকাতা ফুটবল লিগেও সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে ছিলেন তিনি। এ ছাড়া মহমেডান এসসি-র আই লিগ জয়েও তাঁর অবদান ছিল গুরুত্বপূর্ণ। সম্প্রতি ভারতীয় সিনিয়র দলেও অভিষেক হয় তাঁর।

মিজোরামের এই তরুণ ফরোয়ার্ড আইজল এফসি-তে তিন বছর খেলার পর ২০২৩-এ মহমেডান এসসি- তে যোগ দেন ও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে সবার নজর কাড়েন। ডুরান্ড কাপে তিন ম্যাচে ছ'গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার জিতে নেন তিনি। এ ছাড়া কলকাতা লিগে ২১টি ও আই লিগে পাঁচ গোল করেন তিনি। এই দুই লিখেই চ্যাম্পিয়ন হয় মহমেডান। তাঁর এই পারফরম্যান্স তাঁকে ভারতীয় দলে সুযোগ এনে দেয়।

এ বার ইস্টবেঙ্গলে যোগ দিয়ে উচ্ছ্বসিত ডেভিড বলেন, "ইস্টবেঙ্গলের লক্ষ্য লক্ষ্য সমর্থকদের সামনে খেলা আমার কাছে দারুন ব্যাপার। মহেশ, লালচুঙনুঙ্গা, নন্দকুমারের সঙ্গে জাতীয় শিবিরে বেশ কয়েকদিন কাটিয়েছি। ওরা খুবই সাহায্য ও উজ্জীবিত করেছে আমাকে। এই ক্লাবের জন্য নিজের সেরাটা দিতে চাই"।

ইস্টবেঙ্গল এফসি-র কোচ কার্লস কুয়াদ্রাত ২২ বছর বয়সী ভারতীয় ফরোয়ার্ডকে পাওয়া নিয়ে বলেন, "অনেকদিন ধরেই ডেভিডকে পাওয়ার চেষ্টা করছি আমরা। ও ডুরান্ড কাপ ও কলকাতা লিগে সর্বোচ্চ স্কোরার হওয়ার পর থেকেই ওর ওপর নজর ছিল আমার। শেষ পর্যন্ত ওর মতো হীরেকে পেয়ে আমি খুশি"।

কয়েক দিন আগেই গত আইএসএল-এর সর্বোচ্চ গোলদাতা দিমিত্রিয়স দিয়ামান্তাকসকে সই করিয়েছে লাল-হলুদ বাহিনী। এ বার আর এক ভারতীয় স্ট্রাইকারকেও নিয়ে নিল তারা।

সম্প্রতি গত মরশুমের দলের তিন বিদেশী ভিক্টর ভাসকেজ, ফেলিসিও ব্রাউন ও আলেকজান্দার প্যানটিচকে অব্যহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় লাল-হলুদ ব্রিগেড। গত আইএসএলে নয় নম্বরে থেকে লিগ শেষ করে ইস্টবেঙ্গল এফসি। প্লে-অফের দোরগোড়ায় পৌঁছেও তারা শেষ পর্যন্ত পরপর ব্যর্থতার ফলে নয়ে নেমে যায়। তবে মরশুমের অন্য দুই টুর্নামেন্টে ভাল ফল করে। কলিঙ্গ সুপার কাপে চ্যাম্পিয়ন হয় তারা এবং ডুরান্ড কাপে রানার্স-আপ হয়। সম্প্রতি আগামী মরশুমের জন্য আরও ভাল দল গড়বেন বলে সমর্থকদের আশ্বাস দিয়েছেন তাদের স্প্যানিশ কোচ কার্লস কুয়াদ্রাত। ধাপে ধাপে সেই দিকেই এগোচ্ছে তারা।