ই-স্পোর্টস দুনিয়ায় ইআইএসএল বিপ্লব এনে যুব সমাজকে ফুটবলের প্রতি আহ্বান এফএসডিএলের

ফুটবল স্পোর্টস ডেভলপমেন্ট লিমিটেড বা এফএসডিএল (FSDL) ও দক্ষিণ এশিয়ার সেরা ই-স্পোর্টস সংস্থা NODWIN Gaiming (নডউইন গেমিং) যুগ্ম ভাবে পেশ করতে চলেছে ইআইএসএল (eISL), যার ঘোষণা হল আজ, সোমবার। ইন্ডিয়ান সুপার লিগই ভারতের প্রথম লিগ, যা ইএ স্পোর্টসের (EA SPORTS) সঙ্গে হাত মিলিয়ে গেমিংয়ের দুনিয়ায় প্রবেশ করেছে।

টুর্নামেন্টের প্রোমো দেখার জন্য ক্লিক করুন এখানে 

ফুটবল অনুরাগীদের সামনে ক্রমাগত ফুটবলের নতুন দিগন্ত খুলে দেওয়ার চেষ্টায় নিয়োজিত থাকে এফএসডিএল। দেশের ক্রমবর্ধমান যুব ফুটবল অনুরাগীদের এই খেলার প্রতি আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য ইআইএসএল সে রকমই একটি উদ্যোগ, যা তাদের গেমিংয়ের প্রতি আকর্ষণের মাধ্যমে ফুটবল-প্রেম বাড়াতেও সাহায্য করবে। ইআইএসএলের আয়োজক হতে চলেছে নডউইন গেমিং।

আইএসএলের ২০২০-২১ মরশুম শুরুর প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই, ২০ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে যাবে ইআইএসএলের উদ্বোধনী মরশুমও। এর ফাইনাল হবে ২০ মার্চ, ২০২২। এই টুর্নামেন্টের জন্য থাকছে বিপুল পরিমান আর্থিক পুরস্কারও। সব মিলিয়ে ৭৪ লক্ষ টাকার আর্থিক পুরস্কার দেওয়া হবে ইআইএসএলে। এ ছাড়াও টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় পাবেন চার লক্ষ টাকার পুরস্কারও।

মোট ২২ জন ইস্পোর্টস খেলোয়াড়, ১১ জিন পুরুষ ও ১১ জন মহিলা, অংশগ্রহনকারী প্রতি ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পাবেন। ইস্পোর্টস সাম্রাজ্যে মেয়েদের অংশগ্রহন ক্রমশ বেড়ে চলার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সব মিলিয়ে এই নডউইন গেমিং ও ইএ স্পোর্টসের সঙ্গে যৌথ ভাবে আয়োজিত এই ই-টুর্নামেন্টে ১১৭টি ম্যাচ হবে, যার চ্যাম্পিয়নরা ইএ স্পোর্টস ফিফা২২ গ্লোবাল সিরিজ (FGS) প্লে অফে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। অর্থাৎ, আইএসএল হয়ে উঠতে চলেছে এই আন্তর্জাতিক ই-ফুটবল প্রতিযোগিতার বাছাই পর্ব।

কিন্তু কী ভাবে বাছাই করা হবে এর খেলোয়াড়দের? ইএ স্পোর্টস ফিফা২২-এ নিয়মিত অংশ নেন যে ভারতীয় খেলোয়াড়রা, তাঁদের মোট ১১টি অনলাইন কোয়ালিফায়ারের গণ্ডী পেরিয়ে ইআইএসএলের মাঠে নামার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। প্রতিটি কোয়ালিফায়ার ১১টি ক্লাবের খেলোয়াড় বাছাইয়ে সাহায্য করবে। প্রতি ক্লাব দু’জন করে খেলোয়াড় খেলাবে, একজন পুরুষ, একজন মহিলা। ১২ নম্বর কোয়ালিফায়ারে অংশ নেবেন শুধু মেয়েরাই। যা থেকে ক্লাবগুলি তাদের মহিলা খেলোয়াড়দের বেছে নেবে। বাকি ১১টি কোয়ালিফায়ার হবে ২০২০-২১ আইএসএল মরশুমের লিগ তালিকায় ক্লাবগুলির অবস্থান অনুযায়ী। এই টুর্নামেন্টে অনলাইন কোয়ালিফায়ার. নিয়মিত সিজন এবং গ্র্যান্ড ফাইনাল, সবই থাকবে।

ইআইএসএলের প্রথম মরশুমে ক্লাবগুলো রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে খেলবে এবং তার লিগ টেবলও থাকবে। সেরা চারটি ক্লাব গ্র্যান্ড ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। ফাইনালিস্টরা ডাবল এলিমিনেশন ফর্ম্যাটে খেলবে এবং তা থেকেই বেছে নেওয়া হবে জয়ী দলকে।

খেলোয়াড়দের সুরক্ষার কথাও মাথায় রাখা হচ্ছে। তাই ইআইএসএল মরশুম চলাকালীন হরিয়ানার গুরুগ্রামে একটি জৈব সুরক্ষা বলয়ও তৈরি করা হবে, যাতে তাঁরা সেই বলয়ের মধ্যে থেকে এই ই-টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারেন।

এফএসডিএল-এর চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার মার্টিন বেইন এই প্রসঙ্গে বলেন, “যে কোনও খেলার প্রচার ও প্রসারের অন্যতম প্রধান শর্তই হল সেই খেলার অনুরাগীদের বিপুল অংশগ্রহন। ভারতে অনলাইন গেমিংয়ের ক্রমবর্ধমান প্রসার এ দেশের আগামী প্রজন্মের ক্রীড়া অনুরাগীদের আকর্ষণ করার একটা বড় সুযোগ এনে দিয়েছে। ফুটবলের ভবিষ্যতের জন্য ইস্পোর্টসের অভিজ্ঞতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং আমরা এর প্রসারের ব্যপারে সর্বদাই সচেষ্ট। ইআইএসএল এক আকর্ষণীয় মঞ্চ এবং আমরা আত্মবিশ্বাসী যে, এর ফলে ফুটবল অনুরাগীর সংখ্যা আরও বাড়বে এবং এ দেশে ফুটবলের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে এই ইআইএসএল”।

নডউইন গেমিংয়ের এমডি ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা অক্ষত রাঠি বলেন, “এই ইএ স্পোর্টস ফিফা গ্লোবাল সিরিজ ইন্ডিয়া কোয়ালিফায়ার্সের মাধ্যমে নডউইন গেমিং, ইন্ডিয়ান সুপার লিগ ও ইএ স্পোর্টস সেরা ফিফা খেলোয়াড় বাছাইয়ের লক্ষ্যে এগোচ্ছে। আইএসএলের প্রভাবের সঙ্গে ফিফা ২২-র তুমুল জনপ্রিয়তার মিশ্রণে এ দেশের ফুটবল নিয়ে দর্শক ও খেলোয়াড়দের আগ্রহে জোয়ার আসতে চলেছে। এই উদ্যোগ ভারতে ই-স্পোর্টস অনুরাগীদেরও আনন্দ নিশ্চিত ভাবে বহুগুন বাড়িয়ে তুলবে”।

সবচেয়ে জনপ্রিয় ই-স্পোর্টস টুর্নামেন্ট ইএ স্পোর্টস ফিফা গ্লোবাল সিরিজকে এই উপমহাদেশে নিয়ে আসা হয়েছে টুর্নামেন্টের আনন্তর্জাতিক প্রসারের অংশ হিসেবে। বিশ্বের একাধিক জনপ্রিয় ফুটবল লিগের বাছাই পর্ব চলছে এখন। তাই ইএ স্পোর্টস ফিফা গ্লোবাল সিরিজে অংশগ্রহণকারী ও দর্শকসংখ্যাও এখন প্রচুর। ফুটবল অনুরাগীদের ও ই-স্পোর্টস প্রেমীদের এক ছাতার তলায় আনাটাই নডউইন গেমিংয়ের লক্ষ্য, যাতে এই খেলার সৌন্দর্যকে নানা ভাবে উপভোগ করতে পারেন সবাই।

বাছাই পর্ব চলবে ১ থেকে ৩ নভেম্বর এবং গ্র্যান্ড ফাইনাল হবে ১৯ ও ২০ মার্চ ২০২২। খেলোয়াড়দের রেজিস্ট্রেশন হবে ইএসএল প্লে-তে এবং প্লেস্টেশনের ইভেন্ট বিভাগে। টুর্নামেন্টে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য খেলোয়াড়দের প্রত্যেককে ইএসএল প্ল্যাটফর্মে তাঁদের ইএসএল প্লে আইডি তৈরি করতে হবে। খেলোয়াড়দের বয়স ১৬ বছর বা তার বেশি হতে হবে।

Your Comments